তারাবির নামাজ কি / তারাবির নামাজ কি সুন্নত না নফল / তারাবির নামাজ কি সুন্নত নাকি নফল / তারাবির নামাজ কি ওয়াজিব / tarabi namaz ki sunnat naki nofol

তারাবির নামাজ কি / তারাবির নামাজ কি সুন্নত না নফল / তারাবির নামাজ কি সুন্নত নাকি নফল / তারাবির নামাজ কি ওয়াজিব / tarabi namaz ki sunnat naki nofol

তারাবির নামাজ কি / তারাবির নামাজ কি সুন্নত না নফল / তারাবির নামাজ কি সুন্নত নাকি নফল / তারাবির নামাজ কি ওয়াজিব / tarabi namaz ki sunnat naki nofol

তারাবিহ এর পরিচয় 

তারাবিহ (আরবি: تَرَاوِيْحِ) তারাবিহাতুন (আরবি: تَروِيْحَة) শব্দের একটি একক রূপ। এর আভিধানিক অর্থ বসা, বিশ্রাম, শিথিল করা। ইসলামে, তারাবীহ বা কিয়ামুল লাইল হল রাতের নামাজ যা মুসলমানরা রমজান মাসে ফরজ ইশার নামাজের পরে প্রতি রাতে করে। তারাবীহ নামাযের পর বিতর নামায পড়া হয়। তারাবীহ নামাযের রাকাআত নির্দিষ্ট করা হয়নি। হানাফী, শাফেঈ এবং হাম্বলী ফিকহের অনুসারীরা 20 রাকাত, মালেকী ফিকহের অনুসারীরা 38 রাকাত এবং আহলে হাদিসের অনুসারীরা 8 রাকাত তারাবীহ পাঠ করে।

তারাবির নামাজ কি / তারাবির নামাজ কি সুন্নত না নফল / তারাবির নামাজ কি সুন্নত নাকি নফল / তারাবির নামাজ কি ওয়াজিব / taranir namaz ki 

রমজান মাসে তারাবির নামাজ পড়া সুন্নতে মুয়াক্কাদা। পড়লে সওয়াব হবে না পড়লে গুণাহ হবে। একটি কথা মনে রাখবেন, সকল ইবাদতের মূল হচ্ছে নামাজ। নামাজ ছাড়া কোন ইবাদতই কবুল হয় না তাই অন্তত্ব ফরজ নামজ (যেগুলো অবশ্যই পালনীয়) সেগুলো আদায় না করলে গুণাহ হবে। তারাবির নামাজ ফরজ না তবে রমজানে এটি পড়া ভাল তবে এটি ফরজ নামাজের মত বাধ্যতামূলক না। রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, ‘আল্লাহ তাআলা রমজানের রোজাগুলো ফরজ করেছেন এবং এর রাতে তারাবি নামাজের জন্য দণ্ডায়মান হওয়াকে অশেষ পুণ্যের কাজ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন।’ 

তিনি তার সাহাবীদের নিয়ে তিন রাত্রি তারাবীহ আদায় করেছেন। উম্মতের উপর ফরজ হয়ে যেতে পারে এ আশঙ্কায় পরেরদিন তিনি আর জামাতের সাথে তারাবীহ আদায় করেননি। মুসলমানগন আবু বকর (রা:) এর খেলাফত কাল ও উমর (রা:) এর খেলাফতের প্রথম দিকে এ অবস্থায়ই ছিল। এরপর আমীরুল মুমিনীন উমর (রা:) প্রখ্যাত সাহাবী তামীম আদদারী (রা:) ও উবাই ইবনে কাআব (রা:) এর ইমামতিতে তারাবীর জামাতের ব্যবস্থা করেন। যা আজ পর্যন্ত কায়েম আছে। আলহামদুলিল্লাহ! এ তারাবীর জামাত শুধু রমজান মাসেই সুন্নাত।

তারাবীহ নামাজ কি ?

তারাবীহ ‎(تراويح) হল ইসলাম ধর্মের পবিত্র রমজান মাসের গুরুত্বপূর্ণ অতিরিক্ত রাতের নামাজ যেটি মুসলিমগণ রমজান মাস ব্যপী প্রতি রাতে এশার ফরজ নামাজের পর পড়ে থাকেন।রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, ‘আল্লাহ তাআলা রমজানের রোজাগুলো ফরজ করেছেন এবং এর রাতে তারাবি নামাজের জন্য দণ্ডায়মান হওয়াকে অশেষ পুণ্যের কাজ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন।’ তিনি তার সাহাবীদের নিয়ে তিন রাত্রি তারাবীহ আদায় করেছেন।

উম্মতের উপর ফরজ হয়ে যেতে পারে এ আশঙ্কায় পরেরদিন তিনি আর জামাতের সাথে তারাবীহ আদায় করেননি। মুসলমানগন আবু বকর (রা:) এর খেলাফত কাল ও উমর (রা:) এর খেলাফতের প্রথম দিকে এ অবস্থায়ই ছিল। এরপর আমীরুল মুমিনীন উমর (রা:) প্রখ্যাত সাহাবী তামীম আদদারী (রা:) ও উবাই ইবনে কাআব (রা:) এর ইমামতিতে তারাবীর জামাতের ব্যবস্থা করেন। যা আজ পর্যন্ত কায়েম আছে। আলহামদুলিল্লাহ! এ তারাবীর জামাত শুধু রমজান মাসেই সুন্নাত।

Tag: তারাবির নামাজ কি সুন্নত না নফল, তারাবির নামাজ কি সুন্নত নাকি নফল, তারাবি নামাজ কি, তারাবির নামাজ কি ওয়াজিব, তারাবির নামাজ কি নফল, তারাবি নামাজ কি নফল, তারাবির নামাজ পড়া কি, tarabi namaz ki nofol, tarabi namaz ki sunnat naki nofol, tarabi namaz ki sunnat bangla, tarabi namaz, tarabi namaz 2022, taraweeh namaz 2022

Next Post Previous Post